পায়েল-শ্রাবন্তী-তনুশ্রীদের একি বললেন বিজেপি নেতা !

ভারতের পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা ভোটের ফল ঘোষণার পর উত্তাল রয়েছে রাজনীতির মাঠ। বিজেপি নেতারা তৃণমূল কংগ্রেসের জয় কোনোভাবে মেনে নিতে পারছেন না। একইভাবে নিজ দলের প্রার্থীদের যোগ্যতা নিয়েও কথা বলছেন কেউ কেউ।

মঙ্গলবার (৪ মে) বিজেপির বর্ষীয়ান নেতা তথাগত রায় এক আপত্তিকর মন্তব্য করেছেন। দলের তিন তারকা প্রার্থী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়, পায়েল সরকার ও তনুশ্রী চক্রবর্তীকে টিকিট দেওয়া নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন তিনি। একই সঙ্গে তাদের ‘নগরীর নটী’ বলেও কটূক্তি করেছেন।

তথাগত রায় টুইটারে লেখেন, ‘পায়েল-শ্রাবন্তী-তনুশ্রীরা ইত্যাদি ‘নগরীর নটীরা’ নির্বাচনের টাকা নিয়ে কেলি করে বেড়িয়েছেন আর মদন মিত্রর সঙ্গে নৌকাবিলাসে গিয়ে সেলফি তুলেছেন (এবং হেরে ভূত হয়েছেন) তাদেরকে টিকিট দিয়েছিল কে? কেনই বা দিয়েছিল? দিলীপ-কৈলাশ-শিবপ্রকাশ-অরবিন্দ প্রভুরা একটু আলোকপাত করবেন কি?’

তথাগত এমন ‘ভাষা’ ব্যবহার নিয়ে এর আগেও বিতর্কের মুখে পড়েছিলেন। তবে আগে বিরোধীদের সমালোচনা করলেও এবার তিনি নিজের দলের প্রার্থীদের দিকে আঙুল তুললেন।

এই নেতা আগে ত্রিপুরা ও মেঘালয়ের রাজ্যপাল ছিলেন। কিন্তু পদ থেকে অবসর নেওয়ার পরে আবারও রাজনীতিতে সক্রিয় হন তিনি। তবে নির্বাচনে ভবানীপুর থেকে তথাগত প্রার্থী হতে চাইলেও তাকে টিকিট দেয়নি বিজেপি।

এদিকে, টলিউডের অভিনেত্রীদের বিজেপি যেভাবে কটাক্ষ করল তা নিন্দনীয় বলে প্রতিবাদ জানিয়েছেন তৃণমূলের জয়ী বিধায়ক অভিনেতা কাঞ্চন মল্লিক।

তথাগত রায়ের টুইটের বিরুদ্ধে কড়া জবাব দিয়েছেন অভিনেত্রী সাংসদ নুসরত জাহান। এই প্রসঙ্গে তনুশ্রী, পায়েল এবং শ্রাবন্তী কোনও প্রতিক্রিয়া দিতে রাজি না হলেও এগিয়ে এলেন নুসরত।

তিনি বলেছেন, আমি বরাবরই বলে এসেছি বিজেপি নারীর প্রধান শত্রু । এই দল কখনওই নারীকে সম্মান করতে পারেনি, পারবেও না। মেয়েদের ওরা এ ভাবেই দেখে। তাঁদের যে সম্মান করা উচিৎ, সেই শিক্ষাটাই ওদের মধ্যে নেই। সেই জন্যই যোগী আদিত্যনাথ পশ্চিমবঙ্গে রোমিও স্কোয়াডের কথা বলতে পেরেছিলেন।

এই বিজেপিকেই সমূলে উৎখাত করতে ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনীর প্রচারে গিয়েছেন নুসরত। প্রার্থী না হয়েও চষে বেরিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন এলাকা।

নুসরত এ প্রসঙ্গে বললেন, বাংলার মানুষ জানে বিজেপি কেমন। নির্বাচনের ফলই তার প্রমাণ। তবে বাংলার মহিলারা বিজেপি-কে ব্যালট বাক্সে যা জবাব দেওয়ার দিয়ে দিয়েছে। বিজেপি-তে যোগ দিয়ে নিজেকে লজ্জিত করার কোনও মানেই হয় না।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*